,

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি: ১৩ ঘন্টা পর জীবিত উদ্ধার!

রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকা সংলগ্ন বুড়িগঙ্গা নদীতে থেকে ১৩ ঘন্টা পর এক ব্যক্তিকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (২৯ মার্চ) রাত পৌনে ১১টায় ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রল রুমে থেকে বিবার্তাকে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে সোমবার (২৯ জুন) সকালে শ্যামবাজার এলাকা সংলগ্ন বুড়িগঙ্গা নদীতে ঢাকা-চাঁদপুর রুটের ময়ূর-২ নামের একটি লঞ্চের ধাক্কায় যাত্রীবাহী ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ রুটের মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় ৩২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে আর কত জন নিখোঁজ রয়েছে, তা এখনো জানা যায়নি।

এদিকে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত একের পর এক লাশ উদ্ধার করতে থাকে ফায়ার সার্ভিস, নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড, নৌপুলিশ, র‌্যাব সদস্যরা।তবে এ পর্যন্ত ৩২টি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিস।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের ডিউটি অফিসার রোজিনা আক্তার বিবার্তাকে জানান, উদ্ধার হওযা লাশগুলোর মধ্যে বেশ কয়েকজন নারী ও শিশু রয়েছেন। উদ্ধার কাজ শেষ না হওয়াতে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর বা পরিচয় প্রকাশ করেনি বলে জানান তিনি।

এদিকে লঞ্চডুবির ঘটনায় মৃতদের পরিবারকে দেড় লাখ করে টাকা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। সোমাবার (২৯ জুন) লঞ্চডুবির ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে এ ঘোষণা দেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। এছাড়া লাশ দাফনের জন্য নগদ ১০ হাজার টাকা করে দেয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।


     এই বিভাগের আরো খবর