,

টার্মিনালগুলো ব্যবহারের উপযোগী করা প্রয়োজন

রাজশাহী নগরীর যাত্রীসাধারণের উন্নত সেবাদানের জন্য ২০০৪ সালের জুন মাসে নগরীর উপকণ্ঠে সাত দশমিক চার-এক একর জায়গার উপর সাড়ে সাত কোটি টাকা ব্যয়ে গড়িয়া তোলা হয় নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল। ২০১১ সালের জুন মাসে তাহা পরিবহন মালিকদের নিকট হস্তান্তর করে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (আরডিএ)। উদ্দেশ্য ছিল, নগরীর মূল কেন্দ্রে অবস্থিত শিরোইল বাস টার্মিনাল সরাইয়া তাহা শহরের বাহিরে স্থানান্তর করা, যাহাতে শহরের যানজট ও দুর্ঘটনা কমিয়া আসে। কিন্তু প্রতিষ্ঠার ১৪ বত্সর পরও এই উদ্যোগ বাস্তবায়িত না হওয়াটা দুঃখজনক। বর্তমানে টার্মিনালটি কোনো কাজেই আসিতেছে না। এখানে একটু বৃষ্টি হইলেই জমিয়া যায় পানি, অনেকটা ছোটখাটো পুকুরে পরিণত হয়। আছে নিরাপত্তার অভাবও। ফলে এখানে যাত্রীরা আসেন না।

বর্তমানে আন্তঃজেলা ও ঢাকার কোচগুলি শিরোইল বাস টার্মিনাল হইতেই ছাড়িয়া যায়। আর আন্তঃজেলা বাসগুলি নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল হইতে ছাড়িয়া আসিলেও সেখান হইতে যাত্রী না উঠানোর কারণে এই টার্মিনালটি শুধু ব্যবহূত হইতেছে বাস রাখিবার গ্যারেজ হিসাবে। ইহার প্রবেশদ্বারের অবস্থা এতটাই খারাপ যে তাহা বর্ণনাতীত। এমনকি আশেপাশে গজাইয়া উঠিয়াছে জঙ্গলও। নগর পরিকল্পনাবিদদের মতে, শহরকে নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করিতে শহরের ভিতর হইতে বাস চলাচল বন্ধ করিয়া বাইপাস দিয়া চলাচল করাই শ্রেয়। যেহেতু নূতন বাস টার্মিনালটি শহর হইতে খুব দূরে নহে, বাইপাস দিয়া চমত্কার সড়কও নির্মিত হইয়াছে, তাই নওদাপাড়া বাস টার্মিনালটির সদ্ব্যবহার করা বাঞ্ছনীয়। এইক্ষেত্রে যেসব প্রতিবন্ধকতা আছে তাহা দূর করা প্রয়োজন।আমরা এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করিতেছি।


     এই বিভাগের আরো খবর