,

কুষ্টিয়ার তৎকালীন সহকারী পুলিশ সুপার আলমগীরের এসপি হিসেবে পদোন্নতি

টিচার ডেস্ক- এক সময়ের অত্যাধিক চরমপন্থী সন্ত্রাস কবলিত দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলা কুষ্টিয়ার শান্তি ফেরানোর নেপথ্য নায়ক তৎকালীন কুষ্টিয়ার সহকারী পুলিশ সুপার(হেডকোয়ার্টার) আলমগীর হোসেন পুলিশ সুপার(এসপি) হিসেবে পদোন্নতি পেয়েছেন। বুধবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে তাকে পুলিশ সুপার হিসেবে পদোন্নতি দেয়া হয়।

২০০৬ সালে ২৫তম বিসিএস’এ উত্তীর্ণ হয়ে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন চরাঞ্চলের জেলা ভোলার এই কৃতি সন্তান। দীর্ঘ চাকরী জীবনে অত্যন্ত সাহসিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করলেও কুষ্টিয়া ছিল তাঁর চাকরী জীবনে টার্নিং পয়েন্ট। অত্যাধিক চরমপন্থী সন্ত্রাসকবলিত কুষ্টিয়া তখন রক্তের হলিখেলায় মত্ত। শীর্ষ চরমপন্থী সংগঠন গণমুক্তিফৌজ, গণবাহিনী, এমএল জনযুদ্ধ, লাল পতাকা, পূর্ব বাংলা কমিউনিষ্ট পার্টি, হামিদুল-রাশিদুল বাহিনীসহ শীর্ষ চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে দু:সাহসিক অভিযানে অংশ নিয়ে তাদেরকে সমুলে নির্মূল করতে সক্ষম হন। জেলা গোয়েন্দা পুলিশকে সাথে নিয়ে ওইসব অভিযানে তিনি বেশ কয়েকবার চরমপন্থী সন্ত্রাসীদের সাথে বন্দুকযুদ্ধ করতে গিয়ে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পান। ওই অভিযানে আহতও হন তিনি। একই সাথে তিনি নিজেকে দক্ষ এবং সাহসি পুলিশ কর্মকর্তা হিসেকে প্রমাণ করতে সক্ষম হন। তৎকালীন পুলিশ সুপার (বর্তমান ডিআইজি) শাহাবুদ্দিন খানের নেতৃত্বে তাঁর সাহসিক ভুমিকা আজো কুষ্টিয়াবাসী ¯্রদ্ধাভরে স্মরণ করে।
অত্যন্ত সাদামাটা জীবন-যাপনকারী এই পুলিশ কর্মকর্তা জন্ম ভোলা জেলায়। ২০০৬ সালে ২৫তম বিসিএস’এ উত্তীর্ণ হয়ে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন। দায়িত্বের প্রতি অবিচল থেকে তিনি যেখানেই কর্মরত ছিলেন সেখানেই সাহসিক ভূমিকা রাখেন। ২০০৮ সালের ২৫ মার্চ থেকে ২০১০ সালের ২৬ জানুয়ারী পর্যন্ত সময়ে কুষ্টিয়ায় দায়িত্ব পালনকালে নিজেকে দক্ষ ও সাহসি পুলিশ অফিসার হিসেবে প্রমাণ করলেও পরে মৌলভী বাজার জেলায় সহকারী পুলিশ সুপার(সার্কেল) হিসেবে ৪বছরেরও বেশি সময় দায়িত্ব পালন করেন। সেখানেও তিনি দক্ষতার প্রমাণ দিয়ে ডাকাতও দস্যূদের বিরুদ্ধে দু:সাহসিক অভিযান পরিচালনা করে কৃতিত্ব দেখান। সেখান থেকে তিনি রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক(পিপিএম এবং আইজিপি মেডেল লাভ করেন। পরে তিনি ডিএমপিতে টানা ৪বছর দায়িত্ব পালন করেন। এন্টিটেররিজমে ৫মাস দায়িত্ব পালনের পর বর্তমানে তিনি ব্রাম্মনবাড়িয়া জেলায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
এই নিষ্ঠাবান সাহসী পুলিশ কর্মকর্তা জানান আইনশৃঙ্খলার উন্নয়নে দেশ ও জাতির স্বার্থে অবিচল থেকে দায়িত্ব পালন করতে চাই। তার এই পদোন্নতিতে মাননীয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশের মহাপরিদর্শকসহ সকল উর্ধ্বতন কর্মকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।


     এই বিভাগের আরো খবর